অপারেশন সুন্দরবন ফুল মুভি ডাউনলোড লিংক (Operation Sundarban Movie)

অপারেশন সুন্দরবন ফুল মুভি ডাউনলোড লিংক আজকের পোষ্টের মাধ্যমে প্রকাশ করা হবে। এতে করে আপনি সহজেই অপারেশন সুন্দরবন ফুল মুভি ডাউনলোড করতে পারেন।

অপারেশন সুন্দরবন ফুল মুভি ডাউনলোড লিংক

২০২২ সালে মূলত অপারেশন সুন্দরবন প্রথম রিলিজ করা হয়। তারপর থেকে এখন পর্যন্ত সিনেমাটি 4.5 কোটি টাকা অর্জন করেছে। প্রতিনিয়ত বাংলাদেশের বিভিন্ন সিনেমা হলে সিনেমাটি প্রকাশিত হচ্ছে। দেশের যে কোন সিনেমা হলে গিয়ে আপনি টিকিট ক্রয় করেই এই সিনেমাটি দেখতে পারবেন। অপারেশন সুন্দরবন দেখার জন্য আপনি সিনেপ্লেক্সেও যেতে পারেন। তাছাড়া ঢাকার নামিদামি বিভিন্ন ধরনের সিনেমা হল গুলোতে প্রকাশিত হচ্ছে অপারেশন সুন্দরবন।

আজকে আমি আপনাদের সঙ্গে অপারেশন সুন্দরবনের সম্পূর্ণ গল্পটি উপস্থাপনের চেষ্টা করব। এরো সাথে আপনাদের এই সিনেমাটি ডাউনলোড লিংক দিয়ে দিব আশা করছি।

Operation Sundarban Full Movie

অপারেশন সুন্দরবনের মেল গল্পটা হচ্ছে একটি জঙ্গলকে নিয়ে। আর সেটি হচ্ছে অন্য জঙ্গল নয় এটি আমাদের বাংলাদেশের অন্যতম সুন্দরবনকে নিয়ে। এক সময় সুন্দরবনের মাঝে বিভিন্ন ধরনের জলদস্যু থাকত। সেই সময় মানুষ যখন যেত তখন তাদেরকে অনেকভাবে বিরক্ত করতে এবং টাকা হাতিয়ে নিত। এমনকি মানুষকে তারা খুন করেছে এমন ঘটনা দেখা গেছে। তবে এখন বর্তমানে এই ঘটনা নেই। কেননা বাংলাদেশের র‍্যাব এর ব্যাটালিয়ানরা এইসব লোকদের ধরে ভালো মানুষের পরিণত করেছে।

আর সেই টাই কেই আসলে ক্যাপচা করে এই সিনেমাটি তৈরি হয়েছে। অর্থাৎ কিভাবে মূলত তাদেরকে ধরেছে এবং কিভাবে কি হয়েছে এসব বিষয় নিয়ে সুন্দরবন এ আলোচনা হয়েছে। অপারেশন সুন্দরবন সিনেমা যে দুর্দান্ত তা কেউ না বলতে পারে না। অপারেশন সুন্দরবনের মূলত অধিকাংশই ছিল র‍্যাবের কর্মকর্তারা। আমরা আপনাদের সঙ্গে নিচের দিকে আলোচনা করব অপারেশন সুন্দরবনের সকল লোকদেরকে নিয়ে।

যেসব জায়গাতে শুটিং হয়েছে তার থেকে প্রায় ১০০ জন মানুষ শুটিংয়ে অংশগ্রহণ করেছে। অর্থাৎ গ্রাম অঞ্চল থেকে একশোর অধিক মানুষজন অভিনয়ে অংশগ্রহণ করেছেন। এছাড়াও রেবের ৩০ জন কর্মকর্তারা অপারেশন সুন্দরবনের অংশ নিয়েছিল। আর বাকিরা ছিলেন আমাদের জনপ্রিয় তারকারা। অপারেশন সুন্দরবন সিনেমাটি তৈরি হওয়ার পূর্বে আমাদের তিন তারকায় সবার পূর্বে রেবের স্কুলে ভর্তি হয়ে প্রশিক্ষণ শেষ করে। তারপরই মূলত সিনেমাটি তৈরির কার্যক্রম শুরু করেছিল। এই প্রশিক্ষণ নিতে তাদের সময় লেগেছিল সাতদিন। এরপরে মূলত তারা প্রশিক্ষণ শেষে চলে গেছিল কাজ করতে। আর প্রশিক্ষণ নেওয়া হয়েছিল গাজীপুর র‍্যাবের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র হতে।

অপারেশন সুন্দরবন Full Movie

অপারেশন সুন্দরবনের মূল শুটিং হয়েছে বিভিন্ন জায়গার চরে। এর মধ্যে সুন্দরবনের চর বঙ্গবন্ধু চর আরো বিভিন্ন ধরনের চরের মাঝে শুটিং করা হয়েছে। এরই পাশাপাশি গাজীপুরে শুটিং করা হয়েছে। মূলত যেসব জায়গাতে আপনি অফিস দেখেছেন এগুলো ছিলো র‍্যাবের অফিস। আরে অফিস অবস্থিত হচ্ছে গাজীপুরে।

টোটাল ৪১ দিনের মধ্যে সিনেমাটির শুটিং কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছিল। শুটিং কার্যক্রম সম্পূর্ণর পরে মানুষজন মূলত সিনেমাটির জন্য অপেক্ষা করতে থাকে। তবে শুটিং কার্যক্রম শেষের পর তারা এডিটিং নিয়ে অনেক ব্যস্ত হয়ে ওঠে। এবং এডিটিং শেষে গানের কার্যক্রম শুরু হলে তাও শেষ হয়ে যায়। তবে অধীর আগ্রহে দর্শকরা বসে থাকে দুই বছর। এরপরেও না মুক্তি মিললে ওনাকে ভেবে নিয়েছিল যে সিনেমাটি হয়তো আর মুক্তি মিলবে না। তবে হঠাৎ করে ২০২২ সালে সিনেমাটি মুক্তি হয়ে মানুষজনকে চমকিয়ে দেয়।

নুসরাত ফারিয়া, সিয়াম এরা হচ্ছে মূল ক্যারেক্টার। সিনেমার মধ্যে সিয়াম যেরকম অভিনয় করেছে তা আমরা নতুন রূপে দেখেছি। সম্পূর্ণ সিনেমায় একটি রোমাঞ্চকর অ্যাডভেঞ্চার এবং একটি একশন মুভিতে পরিণত হয়েছে। এখানে নুসরাত ফারিয়া অভিনয় করেছেন একজন বাঘ ডিটেক্টর হিসেবে। অর্থাৎ যখনই আশেপাশে কোন জায়গাতে বাঘ আসে তখন নুসরাত ফারিয়া তাদের অবহিত করত। রেবের প্রধান কর্মকর্তা হিসেবে অভিনয় করেছেন রিয়াজ। তার অভিনয় কিন্তু এতটাই ভালো হয়েছে যে কি আর বলা যায়।

সত্যি কথা বলতে এই সিনেমাতে যারা অভিনয় করেছিল তারা খুব ভালো পারফরম্যান্স করেছে। এছাড়া আমাদের রেব ভাইয়েরা যে এত ভালো পারফরম্যান্স করতে পারবে তাকে ভেবেছিল। অভিনয় জগতে নতুন একটি প্রভাব ফেলে দিল অপারেশন সুন্দরবন সিনেমা। আরে অপারেশন সুন্দরবন দেখার জন্য দর্শকদের কি পরিমান ভিড় জমেছে তা আপনারা ফেসবুক পেজ দেখলেই বুঝতে পারবেন। অপারেশন সুন্দরবনের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজটি ভিজিট করতে ভুলবেন না।

Operation Sundarban Full Movie Download Link

অপারেশন সুন্দরবনের মূলত মূল কাহিনীটা আমাদের আজকের পোষ্টের মাঝে উপস্থাপন করার চেষ্টা করা হয়েছে। তবে কিছু অংশ বাদ পড়েছে বলে আমরা সেটি আবার নতুন করে এখানে বলে দিচ্ছি।

২০১৬ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত মূলত জলদর্শীদের দাপটে সুন্দরবনে মানুষের প্রবেশ অনেক কঠিন হয়ে গেছিল। আর সেই দাপট ঘুমাতে মূলত একজন র‍্যাবের অসাধারণ কর্মকর্তাকে নিয়োগ দেয়া হয়। এর ঐ পাশে নিয়োগ দেওয়া হয় একজন কমান্ডারকে যে পুরো দলকে সুরক্ষিত রাখবে। শত্রুদের বিপক্ষে ধীরে ধীরে অসাধারণ পদক্ষেপ নিতে তারা বুদ্ধি খাটায়। তারপরে শত্রুদের উপর আক্রমণ করে এবং সফলভাবে মিশন কমপ্লিট করে ফেলে। আর এই মিশনে তারা সহযোগিতা নিয়েছিল একজন বাঘ ডিটেক্টর এর। যার মাধ্যমে তারা বাঘের আক্রমণ থেকে নিজেকে রক্ষিত করতে পেরেছে।

এই ছায়া ছবিটি ২০২০ সালে কার্যক্রম শেষ করেছিল সিনেমা তৈরির। দীর্ঘকাল করোনাভাইরাসের কারণে মূলত ২০১৯ সাল থেকে ২০২০ সালের নভেম্বর পর্যন্ত তৈরি করতে পারেনি। তবে শুটিংটি শেষ করতে মাত্র ৪১ দিনে সময় লেগেছিলো। আরে শুটিং কার্যক্রমে এলাকার বিভিন্ন মানুষ জন তাদেরকে সহযোগিতা করেছিল। মূল অভিনয় করেছেন রিয়াজ, সিয়াম আহমেদ, তাসকিন রহমান, জিয়াউল রোশান, রাইসুল ইসলাম আসাদ ও নুসরাত ফারিয়া। চলচ্চিত্রটি নির্মাণে প্রায় ১৩০০ লোকজন একই সঙ্গে মিলে কাজ করেছিল।

“বিশ্বের সবচেয়ে বড় প্যারাবন সুন্দরবনে একসময় জলদস্যুদের অবাধ বিচরণ ছিলো। এটি ছিলো সাধারণ মানুষের জন্য ভয়ের একটি জায়গা। এখন সুন্দরবন দস্যুশূন্য। এটি সম্ভব হয়েছে র‌্যাবের চৌকস বাহিনীর একের পর এক দুঃসাহসিক অভিযানের কারণে। সেই সব অভিযান নিয়েই আমার নতুন ছবি।”

—দ্য ডেইলি স্টার অনলাইনকে দীপঙ্কর দীপন

প্রিয় দর্শক সিনেমাটি আপনার কেমন লেগেছে দেখে তা অবশ্যই কমেন্ট সেকশনে জানাতে ভুলবেন না। আর এই সিনেমাটি ফ্রিতে ডাউনলোড করার জন্য লিংক এখনো খুঁজে পাওয়া সম্ভব হয়নি। এটি একটি অসাধারণ প্রিমিয়ার মুভি মাত্র কিছু টাকা খরচ করলেই দেখতে পারবেন সিনেমা হলে। এই কারণে খামাখা সময় না নষ্ট করে এখনই সিনেমা হলে গিয়ে দেখে আসতে পারেন।

Movie Link

শেষ কথা: আর দেশের অর্থ উপার্জনের মূল কেন্দ্র ভিত্তি বর্তমানে সিনেমা করা উচিত। লোকে করলে দেখতে পারবেন ভারতে কিন্তু সিনেমা জগত থেকে প্রচুর অর্থ ইনকাম করছে। তবে বাংলাদেশে তার সম্ভব হচ্ছে না কেননা অনেকেই ফ্রি ডাউনলোড করতে চাচ্ছে। আর ফ্রিতে ডাউনলোড করার কথা চিন্তা করবেন না আশা করছি। কেননা এগুলো সিনেমা তৈরি করতে কোটি কোটি টাকা অর্থ ব্যয় করতে হয় নির্মাতাদের। তাদের কথা চিন্তা করে অবশ্যই আপনাকে এই সিনেমাটি ফ্রিতে ডাউনলোড করা থেকে বিরত থাকা উচিত।

Leave a Comment